কোড ওয়ারিয়রস চ্যালেঞ্জ এবং নাক পয়েন্টার এক্সেপশান

View previous topic View next topic Go down

কোড ওয়ারিয়রস চ্যালেঞ্জ এবং নাক পয়েন্টার এক্সেপশান

Post by BIT0112-Rokon on Tue Feb 08, 2011 6:17 am

কোড ওয়াররিয়রস চ্যালেঞ্জ এবং নাক পয়েন্টার এক্সেপশান

আমার নাক নিয়ে দু-একটা কথা বলতে এসেছি আজ। আমার নাক মানে খুব সুন্দর কিছু না, তবে বেশ লম্বা এবং বড়ো নাকি(আমার জৈনক বন্ধুর মতামত)। প্রথমে মূল কারণটা বলি, কিছুদিন আগে আমার নাকখানা দিয়ে হঠাৎকরে অনেক রক্তপাত শুরু হয়। কোন কারণ ছিল না। হঠাৎ শর্ট সার্কিট আরকি। প্রায় আধ ঘণ্টার মতো অযথা রক্তপাত। কোনই দরকার ছিল না যদিও। যাহোক, যখন হয়েই গেছে, তা নিয়ে একটু বলি।

দিনটা চমৎকার। আসলে প্রতিদিনই চমৎকার, আলাদা করে বলার কিছু নাই। আচ্ছা, আমি খুব ব্যস্ত, আসলে মহা ব্যস্ত। শুক্রবার আমার একটা কম্পিটিশান আছে। তার আগে বলে নেই আমি অত্যন্ত ফালতু রকম একজন কোডার। কোডিং কিচ্ছু বুঝি না, অযথা কষ্টকরে যাই (বুঝার চেষ্টা করি আরকি।)। কোড ওয়ারিরয়রস চ্যালেঞ্জ নামক একটা কম্পিটিশান এর আয়োজন করেছিল বেসিসি। বেসিস হলো Bangladesh Assiociation of Software and Information Service. যাহোক, এইটা বাংলাদেশের মস্ত বড়ো একটা প্রতিষ্ঠান। তাদের প্রতিযোগিতার কথা আমি জানতাম না। আমাদের কবির স্যার (আমার নাকের রক্তপাতের জন্য কবির স্যার ই আসলে দায়ী, কেন পরে বলবো) আমাকে জানিয়েছেন। তো আমি রেজিষ্ট্রেশান করলাম। প্রথম রাউণ্ড হলো স্ক্রিনিং। আমার সাথে আছে, মোহাইমিন, এবং অনিক। মোহাইমিন হলো একটা কোডার। ও সঙ্গে সবসময় নেল কাটার রাখে (আমিও রাখি), সুতরাং সে একজন খাটি কোডার। অনিক এর সম্পর্কে কিছু বলবো না, কারণ ওর উপর আমার মেজাজ খারাপ। যাহোক, স্ক্রিনিং দিয়ে আসলাম। কিন্তু আমার ধারণা ছিল না যে এইটাতে টিকে যাবো। কারণ টেস্ট খুব একটা ভাল হয়নি আমার মনে হয়েছিল। বলে রাখি, এইটা আমার প্রথম কম্পটিশান। আমি কখনো এর আগে কোন কম্পিটিশান এ জয়েন করি নাই। সুতরাং একটু এক্সপেকটেশান বেশি ছিল। স্ক্রিনিং দিয়ে এসে মনটা একটু খারাপ হয়ে গেছিলো, কারণ কেন জানি মনে হচ্ছিল আমরা বাদ পড়বো। দুইদিন পড় মোহইমিন এর এসএমএস, আমরা সিলেক্টেড। আহ কি মজা। তারমানে নেক্সট রাউন্ডে আমরা যাচ্ছি। আমাদের ট্র্যাক ছিল জাভা। জাভা জিনিসটা ভাল কিন্তু বিচ্ছিরি রকম জটিল এবং কঠিন। তবে আমার সাথে একটা কোডার আছে,সুতরাং চিন্তা কি। যেহেতু কম্পিটিশান এর ধরণ সফটওয়্যার ডেভেলপমেন্ট, সুতরাং আমি মনে করি মোহাইমিন, আমি, আর অনিক, এই তিনজনকে চ্যালেঞ্জ করার মতো ভার্সিটি স্টুডেন্ট বাংলাদেশে খুব কমই আছে। এইটি ছিল আমার বিশ্বাস। সুতরাং আমারা খুব ভাল করবো। আমাদের ধারণা আমার যেহেতু স্টুডেন্ট, সুতরাং জাভা standard edition থেকে প্রবলেম দেওয়া হবে। আমরা এইটা ভাল পারি।


কিন্তু নেক্সট রাওন্ডের একদিন আগে শুনি, আমাদের ওয়েব এপ্লিকেশান ডেভেলপ করতে দেওয়া হবে। মোহইমিন,অনিকের এর মাথায় হাত। ওরা এখনো ওয়েব এপ্লিকেশান নিয়ে কাজ শুরু করে নাই। রিকোয়ারমেন্ট দেখে আমিও ভরকে গিয়েছিলাম প্রথম দিকে। কিন্তু আমি শেষ পর্যন্ত ওকে সাহস দিলাম। আমি স্প্রিং ফ্রেমওয়ার্ক নিয়ে কাজ করেছি কিছু দিন আগে, হাইবারনেটও জানি। সুতরাং ভয় পাওয়ার কিছু নেই। দ্বিতীয় রাউন্ডে গেলাম। আমাদেরকে দেওয়া হলো একটা ওয়েব এপ্লিকেশান বানাতে। জাভাতে ওয়েব এর কাজ কতো ডিফিকাল্ট এইটা একমাত্র জাভা ডেপেলপার ছাড়া বুঝার কারও ক্ষমতা নেই। যাহোক, আমরা চেষ্টা করলাম। শেষ করতে পারি নাই। একটা নির্দিষ্ট লেভেল পর্যন্ত করতে পেরিছিলাম। তারপর প্রেজেন্টেশান। দিলাম। মন খারাপ করে বাসায় এলাম। ভাল করতে পারি নাই। কি আর করা। কিন্তু মজার ব্যপার হলো, আমার ফাইনাল এর জন্য সিলেক্টেট হয়ে গেলাম। কারণ আমাদের কোডিং স্ট্যান্ডার্ড, স্ট্রাকচার,এপ্রোচ,এবং টেকনোলজি ইউজ ওদের পছন্দ হয়েছিল বলে আমার ধারণা। অনেক মজা। ফাইনাল রাওন্ড অনেক বেশি জটিল। আমাদের ওয়েব সার্ভিস অ্যাপ লিখতে হবে। সিম্পল ওয়েব এপ বানাতে আমাদের অবস্থা খারাপ, এখন বানাতে হবে ওয়েব সারভিস এপ। আমার মাথা খারাপ হওয়া শুরু হয়ে গেছে। নেটও অনেক ঘাটাঘাটি শুরু করলাম। কোত্থাও কোন ভাল রিসোর্স নেই। খুবই খারাপ অবস্থা। কি করতে হবে জানি কিন্তু কিভাবে করতে হবে জানি না। আমাদের কাজ হলো একটা ওয়েব সার্ভিস কনজিওম করে একটা এপ তৈরি করা, দেন সেই এপ পাবলিশ করা, যাতে অন্য কোন এপ সেটা কনজিউম করতে পারে। মহা ঝামেলা। রিকোয়ারমেন্ট হলো, স্প্রিং ফ্রেমওয়ার্ক, হাইবারনেট ব্যবাহার করতে হবে। ওযেব সার্ভিস এর জন্য অ্যাপাচি সিএফএক্স ইউজ করতে হবে। সাবভার্সন (git), টেস্ট কেস, ডকুমেন্টাশান রিকোমেন্ডেড। হাতে সময় আছে মাত্র ১০ দিন। কিভাবে আমার পক্ষে সম্ভব। সম্ভব না। মোহামিনকে শুধু বললাম, তুই শুধু মাত্র টেস্ট কেস গুলো লিখে দিবি। অনিক এর উপর মেজাজ খারাপ। কারণ ওকে তিনদিন গুতিয়ে আমি গিট ইনস্টল করাতে পারলাম না। মহা হতাশা। এদিকে আমি নেট তন্ন তন্ন করে খুজছি রিসোর্সের জন্য। অবশেষে কয়েকদিন খুজার পর মোটামুটি রিসোর্স পেলাম। হাতে আছে ছয়দিন এর মতো। মহা ব্যস্ত। অবশেষে কোড লিখতে বসে গেলাম। শুধু মাত্র স্কেলেটনটা লিখবো, দেন কম্পটিশান এ গিয়ে এই স্কেলেটন এর উপর কাজ করবো। তিনদিন রাত দিন বসে বসে আমি স্কেলেটান লিখলাম। চতুর্থ দিন গিয়ে পড়লাম মহা বাজে সিচুয়েশান এ। এক অদ্ভুত এক্সেপশান। এইটা আমি কোনদিন দেখি নাই । কি করবো কি করবো কিছুতেই বুঝতেছি না। নেট এ ঘাটাঘাটি করলাম। কিচ্ছু পেলাম না। আচ্ছা এই স্কেলেটান এর মধ্যে একটা অংশ বেসিস দিয়ে দিয়েছিল। ওইটার উপর আমাদের কাজ করতে হবে। যাহোক এখন কি করবো। সুজন স্যারকে যন্ত্রণা করা শুরু করলাম। স্যার অপিসে। প্রচণ্ড ব্যস্ত। সারকে কোড পাঠালাম। কিন্তু স্যার দেখবেন কখন, কাজে এতো ব্যস্ত। দেখার সময় পেলেন না। দুপুরে একটা পর্যায়ে জাভার উপর বিরক্ত হয়ে স্ট্যাটাস দিলাম, জাবাকে ডিভোর্স দেবো। এক্সেপশান এর জ্বালায় মহা বিরক্ত। যাহোক, ওইটার উপল লেগে থাকলাম। আর এদিকে সারাদিন ধরে সুজন স্যারকে যন্ত্রণা করতেছি। স্যার সারদিন সময় পাননি। নয়টা সময় বললেন, আমি বাসায় আসলাম খেয়ে রেস্ট নিয়ে তোমার প্রবলেম নিয়ে বসবো। দশটা সময় স্যারকে আবার মনে করিয়ে দিলাম। স্যার সারে এগারটা সময় ফোন করে বললেন, রোকন, তোমাকে শনিবারে পিটনা দেবো। তুমি সাইটমেশ ইউজ করছো, কিন্তু এর TLD web.xml এ এড করো নাই। স্যার এর সাথে কথা বলছি, ঠিক তখনি আমার নাক দিয়ে ট্যাপের পানির মতো করে রক্ত পরা শুরু করলো। কিছুই বুঝলাম না কি কারণ। স্যারকে হ্যা হ্যা করে ফোন রেখে দিয়ে শাকির বললাম, শাকির আমার নাক দিয়ে রক্ত পড়ছে। শাকির দেখে অমনি দৌড়। বাসা থেকে বেড় হয়ে ছাপড়া মসজিদ এ গেলাম। রিক্সাকে বলি, ইমারজেনসি। রিক্সাওয়ালার উত্তর ইমারজেনসিতে যাওয়া যাবেনা। এদিকে রক্ত পড়ছে, নাক চেপে ধরে আছি, মুখ দিয়ে আসছে। যাহোক,শেষ পর্যন্ত রিক্সা পেলাম, এবং অনেক কষ্টে ঢাকা মেডেক্যাল এর ইমারজেণ্সি খুজে পেলাম। আমার বন্ধু খোকন ঢাকা মেডিক্যাল এর চতুর্থ বর্ষের ছাত্র। ও গিয়ে ডাক্তারকে বলতেই, ডাক্তার আমার দিকে নজর দিলেন। চটপট কয়েকটা ওষুধ লিখে দিলেন, শাকির দৌড়ালো। শাকির কে অসংখ্য ধণ্যবাদ। ও না থাকলে আমার অবস্থা কি যে হতো বল পারতেছি না।

ডাক্তার ছাত্র পেয়ে লেকচার দিতে শুরু করলো, খোকন আর ডাক্তার কি সব কথা বার্তা বললো, কিছু বুঝলাম না। যাহোক, ওষুদ চলে আসলো।
এবার শুরু হলো আমার ট্রিটমেন্ট পর্ব। অর্থাৎ আমার মারা যাওয়ার পর্ব। ডাক্তার সাহেব বিশাল গজ নিয়ে রেডি। এগুলো আমার নাকের মধ্যে ঢুকানো হবে। আমি একবার দেখে ডাক্তারকে বললাম ব্যাথা লাগবে? ডাক্তার বললো, লাগবে না, তবে একটু লাগবে। তোমার রক্ত বন্ধ করতে হবে আগে, তুমি ব্যাথার চিন্তা করতেছো।
যাহোক, গজ যখন ডাক্তারদের অস্ত্র দিয়ে (আমার কাছে লম্বা শিক মনে হইছে) দিয়ে আমার দুই নাকের মধ্যে ঠেসে ঢুকিয়ে দেওয়া হলো,আমার মনে হচ্ছিল মারা যাচ্ছি। এতো জোড়ে চিৎকার দিয়েছে যে, পরে আমার নিজের কাছেই অবাক লাগছে, এইটা কেমনে সম্ভব।


যাহোক, আমার নাক প্যাক করে দেওয়া হলো। আর সাথে সাথে আমার কোড ওয়ারিয়রস এর স্বপ্ন ভেসে গেলো আমার নাকের রক্তস্রোতে।



ও আচ্ছা , এইটাকে আমার বন্ধুরা নাম দিয়েছে নাক পয়েন্টার এক্সেপশান। আর আর ওই এক্সেপশানটা আমার দোষের করাণে হয়নি, বেসিস যে স্যাম্পল কোড দিয়েছিল, ওইটাতেই ছিল, আমি ওদেরটার কিছু অংশ আমার কোডএ ইউজ করেছিলাম। সাইটমেশ এবং ডেকোরেটর নামের কিছু বস্তু থেকে এই এক্সেপশান হচ্ছিল, পরে তারা এইটা আমাকে জানায়েছে। এখন ওদের উপর প্রচুর মেজাজ খারাপ।



এখন মোটামুটি ভাল আছি। বৃহস্প্রতিবার একটা প্রেজেন্টেশান আছে, মানে আমারা প্রতিযোগিতায় গিয়ে কি শিখলাম,কি দেখলাম তা সবার সাথে শেয়ার করবো, সুতরাং বাকিটুকু সেইদিন বলবো। আর কবির সার এর আমার নাকের রক্তপাতের জন্য দায়ী কারণ, এই কোড ওয়ারিয়রস এর কথা আমি জানতাম না, উনি আমাকে জানিয়েছেন। স্যার এইটার কথা আমাকে না বললে আমি জানতাম না, আর না জানলে এইটাতে আমি জয়েন করতাম না আর আমার নাকের এই অবস্থা হতো না।


Last edited by BIT0112-Rokon on Tue Feb 08, 2011 6:41 am; edited 1 time in total

_________________________________________________________________


Code Explosion Blog | Code Explosion Wiki | The Rokonoid | নির্ঝরিণী
avatar
BIT0112-Rokon
Programmer
Programmer

Course(s) :
  • BIT

Blood Group : O+
Posts : 673
Points : 1269

View user profile http://blog.codexplo.org

Back to top Go down

Re: কোড ওয়ারিয়রস চ্যালেঞ্জ এবং নাক পয়েন্টার এক্সেপশান

Post by BIT-0126 on Tue Feb 08, 2011 6:38 am

Write a short story based on the above paragraph & give a short title to it.

BIT-0126
Alpha Release
Alpha Release

Course(s) :
  • BIT

Blood Group : AB+
Posts : 43
Points : 68

View user profile

Back to top Go down

Re: কোড ওয়ারিয়রস চ্যালেঞ্জ এবং নাক পয়েন্টার এক্সেপশান

Post by BIT0216-Habib on Tue Feb 08, 2011 11:41 pm

BIT-0126 wrote:
Write a short story based on the above paragraph & give a short title to it.

মজা পাইলাম। Razz
avatar
BIT0216-Habib
Administrator-RC

Course(s) :
  • BIT

Blood Group : O+
Posts : 217
Points : 458

View user profile

Back to top Go down

Re: কোড ওয়ারিয়রস চ্যালেঞ্জ এবং নাক পয়েন্টার এক্সেপশান

Post by BIT0129-Tabassum on Tue Feb 08, 2011 11:44 pm

BIT-0126 wrote:Write a short story based on the above paragraph & give a short title to it.

দারুন বলছিস Very Happy
মূল post পরার আগেই তোরে একটা rep++

Tease

_________________________________________________________________
মানুষ তার স্বপ্নের সমান বড়
avatar
BIT0129-Tabassum
Global Moderator
Global Moderator

Course(s) :
  • BIT

Blood Group : A+
Posts : 1496
Points : 2298

View user profile http://probe-tabassum.blogspot.com

Back to top Go down

Re: কোড ওয়ারিয়রস চ্যালেঞ্জ এবং নাক পয়েন্টার এক্সেপশান

Post by BIT0122-Amit on Wed Feb 09, 2011 12:54 am

পড়ে হাসবো না কাঁদবো বুঝলাম না Neutral বলার ধরণ খুব মজার, কাহিনী দুঃখের।
যাই হোক, কিছু বানান ভুল আছে, সেগুলো ধরা উচিত নাকি বুঝছি না। বললে অন্যরা দেখে বলবে এই দেখো। শুরুতেই দোষ ধরতে আসছে। না বললে বলবে এহহে, বানান গুলো ঠিক করা উচিত আসিলো।

যাকগে, রোকন কিছু কিছু যায়গায় এমন কিছু কথা লেখে যেন সবাই প্রবল ভাবে মাথা নাড়তে নাড়তে বলে না রোকন, তুমি এমন না+কিছু প্রশংসা। আমি ইহার তীব্র প্রতিবাদ ও নিন্দা জানাচ্ছি।


তবে আমি ঠিক নিশ্চিত না, তুই এত বেশি চিল্লালি কেন Neutral মানে নাক তো আমার ভেঙ্গেছিল, আর আমারও নাকের ভিতরে এই লম্বা তুলা গুতিয়ে ঢুকিয়েছিল। আমি কেন জানি চিল্লাচিল্লি করি নাই। (যদ্দূর মনে পরে, ব্যাথার চোটেই অবশ হয়ে গেছিল।)

যাকগে, ধর্মের কল বাতাসে নড়ে। Very Happy তুই আমাকে খালি খ্যাপাতি নাকে ঘুষি মারবি বলে। এখন আমি তোকে খালি বলবো "তোর নাকের সামনে ঝাল মরিচের গুড়ো ছুঁড়বো। হাঁচি দিলেই নাক পয়েন্টার" Very Happy Very Happy

স্যারকে অবশ্য আমি একটা ধন্যবাদ দেবো নাক পয়েন্টার ছুঁড়াছুড়িতে ভূমিকা রাখার জন্য। কারণ তা নাহলে তুই যেভাবে নিজের উপরে চাপ দিচ্ছিলি, ওটা সময়মতো ছুড়া না হলে নাকের যায়গায় ব্রেইন এক্সেপসন কট হতো। Neutral

_________________________________________________________________
Adminship / Moderatorship is not about power, it is about Responsibility.

|About me|My Blog|
avatar
BIT0122-Amit
Founder
Founder

Course(s) :
  • BIT

Blood Group : O+
Posts : 4187
Points : 6605

View user profile http://iitdu.forumsmotion.com

Back to top Go down

Re: কোড ওয়ারিয়রস চ্যালেঞ্জ এবং নাক পয়েন্টার এক্সেপশান

Post by Sponsored content


Sponsored content


Back to top Go down

View previous topic View next topic Back to top


 
Permissions in this forum:
You cannot reply to topics in this forum